ঢাকাসোমবার , ২২ মার্চ ২০২১
  • অন্যান্য

আরইউজের চা-চক্রে নাট্যঅভিনেতা অধ্যাপক রহমত আলী

Paris
  • মার্চ ২২, ২০২১, ৫:৪৮ অপরাহ্ণ

অনলাইন ডেস্ক: সেলিব্রেটি বললে ভুল হবে। বরং সাধারণ মানুষদের অন্তরে জায়গা করে নেওয়াই বড় কথা। আমি সে কাজটি করতে পেরেছি কিনা জানি না। তবে আমি আমার জীবনে যেখানে উঠে এসেছি, তার পেছনে ছিল আমার ঐকান্তিক প্রচেষ্টা ও পরিশ্রম। সোমবার (২২মার্চ) রাতে রাজশাহী সাংবাদি ইউনিয়নে সাংবাদিকদের সঙ্গে চা-চক্রে এসব কথা বলেন দেশের প্রখ্যাত নাট্যঅভিনেতা এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় নাট্যকলা বিভাগের অধ্যাপক রহমত আলী। রাজশাহীর কৃতিমাণ ব্যক্তি হিসেবে আরইউজের উদ্যোগে তাঁকে প্রথমে ফুলেল শুভেচ্ছা জানানো হয়। এরপর তাঁর হাতে প্রীতি উপহার তুলে দেওয়া হয়।
রাজশাহীর স্মৃতিচারণ করে রহমত আলী বলেন, ‘রাজশাহীতে আমার বেড়ে উঠা। শৈশব কেটেছে রাজশাহীতে। আমি শৈশব থেকেই খুবই দূরুন্ত ছিলাম। তবে স্কুলজীবন থেকেই নাট্যজগতে প্রবেশ করি। এরপর ধাপে ধাপে এগিয়ে এই নাটকের পেছনে।’
এ অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন আরইউজের সভাপতি রফিকুল ইসলাম। সঞ্চালনা করেন আরইউজের সাধারণ সম্পাদক তানজিমুল হক। এসময় উপস্থিত ছিলেন সংগঠনের সহসভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা তৈবুর রহমান, নির্বাহী সদস্য শরিফুল ইসলাম তোতা, সদস্য আসাদুজ্জামান আসাদ,আজাহর উদ্দিন, সেলিম জাহাঙ্গীর, সালাহ উদ্দিন, আবুল কালাম আজাদ. রায়হানুল ইসলাম, রাজশাহী কলেজ রিপোর্টাস ইউনিটির সাবেক সভাপতি বাবর আলী, সাধারণ সম্পাদক মোফাজ্জল বিদ্যুৎ, প্রমুখ।

নাট্যঅভিনেতা রহমত আলী বলেন আমার চাকুরী জীবনে অবসরের পর রাজশাহীতে ফিরে আসবো এবং রাজশাহীর নাটক পাগোল মানুষদের নিয়ে মঞ্চের জন্য কাজ করবো।