ঢাকারবিবার , ১৪ মে ২০২৩
  • অন্যান্য

cricket

বাংলাদেশ ২৭৫ রানের টার্গেট দিল আয়ারল্যান্ডকে

Paris
  • অনলাইন ডেস্ক

    মে ১৪, ২০২৩, ৮:১০ অপরাহ্ণ
ব্যাটিংয়ে তামিম ইকবাল

আয়ারল্যান্ড সিরিজের শেষ ম্যাচে প্রথমে ব্যাট করে আইরিশদের ২৭৫ রানের টার্গেট দিয়েছে বাংলাদেশ। ম্যাচে দীর্ঘদিন পর হাফ সেঞ্চুরির দেখা পেয়েছেন অধিনায়ক তামিম ইকবাল।

চেমসফোর্ডে আইরিশ অধিনায়ক টস জিতে তামিম ইকবালদের প্রথমে ব্যাট করার জন্য আমন্ত্রণ জানায়। ব্যাটিংয়ে নেমে শুরুর দিকেই হোচট খায় বাংলাদেশ। দলীয় ১৮ রানে ক্যাচ তুলে দিয়ে আউট হন রনি তালুকদার। এরপর দেখেশুনে খেলতে থাকেন তামিম ও শান্ত। দলীয় রান যখন ৬৭, তখন স্লিপে ক্যাচ তুলে দিয়ে ৩৫ রান করে ফিরে যান শান্ত।

৬৭ রানে দ্বিতীয় উইকেট হারানোর পর দলকে কক্ষপথে রাখেন লিটন দাস ও তামিম ইকবাল। তাদের ব্যাটে বড় সংগ্রহের পথেই হাঁটছিল বাংলাদেশ। কিন্তু ৩৫ রান করে লিটন বিদায় নিলে ভাঙ্গে ৭০ রানের তৃতীয় উইকেটি জুটি। ২৪তম ওভারের তৃতীয় বলটি পঞ্চম স্টাম্প বরাবর খানিকটা শট লেন্থে করেছিলেন অ্যান্ডি ম্যাকব্রাইন। সেখানে পেছনের পায়ে ভর দিয়ে অফ সাইডে খেলতে চেয়েছিলেন লিটন, কিন্তু ঠিকমতো টাইমিং না হওয়ায় মিড অফে ধরা পড়েন এই উইকেটরক্ষক ব্যাটার।

আগের ম্যাচে ব্যাট হাতে প্রশংসা কুড়ানো তাওহীদ হৃদয় এদিন ব্যর্থ। ২৮তম ওভারের শেষ বলে জজ ডকরেলকে ব্যকফুটে কাট করতে গিয়ে ব্যাটে-বলে করতে পারেননি। তাতে বল আঘাত হানে তার উইকেটে। সাজঘরে ফেরার আগে ১৬ বলে ১৩ রান এসেছে তার ব্যাট থেকে।

হৃদয় ফেরার পর মুশফিককে সঙ্গে নিয়ে রানের গতি বাড়ানোর চেষ্টা করেন তামিম। তবে আক্রমণাত্মক খেলতে গিয়ে উল্টো বিপদ ডেকে আনেন তিনি। ৩৪তম ওভারের তৃতীয় বলে ডকরেলকে উড়িয়ে মারতে গিয়ে এডজ হয়ে বল উপরে উঠে যায়, তাতে ৮২ বলে ৬৯ রান করে থামেন তামিম।

১৮৬ রানে পঞ্চম উইকেট হারানোর পর মিরাজকে সঙ্গে নিয়ে ষষ্ঠ উইকেটে ৭৫ রানের জুটি গড়েন মুশফিক। সাম্প্রতিক সময়ে দারুণ ছন্দে থাকা এই অভিজ্ঞ ব্যাটার এদিন সাজঘরে ফিরেছেন হাফ সেঞ্চুরি না পাওয়ার আক্ষেপ নিয়ে। ৪৫ রান করা মুশফিক লেগ বিফোরের ফাঁদে পড়লে ভাঙ্গে সেই জুটি। এরপর বেশিক্ষণ আর টিকতে পারলেন না মিরাজও। ৪৭তম ওভারের তৃতীয় বলে অ্যাডায়ারকে উড়িয়ে মারতে গিয়ে ক্যাম্পারের হাতে ধরা পড়েন তিনি। ৩৯ বলে ৩৭ রান করেছেন তিনি।

৪৮ তম ওভারের তৃতীয় বলে রান আউটে কাটা পড়েন হাসান মাহমুদ। তার বিদায়ের ঠিক ৩ বল পর গোল্ডেন ডাক খেয়ে ফেরেন মুস্তাফিজ। শেষ পর্যন্ত বাংলাদেশের ইনিংস দাঁড়ায় সব উইকেট হারিয়ে ২৭৪ রান।