আর্কাইভ কনভাটার ঢাকা, সোমবার, মে ২৭, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ | ১৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
Logo

ঘূর্ণিঝড় রেমাল

Miscreants set fire to the bus

অবরোধ শুরুর আগেই ঢাকায় তিন বাসে আগুন দিল দুর্বৃত্তরা

Bijoy Bangla

অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশিত: ২৪ ডিসেম্বর, ২০২৩, ১১:৫৮ এএম

বিএনপি-জামায়াতের ডাকা অবরোধ কর্মসূচি শুরু হওয়ার আগেই রাজধানীতে তিনটি বাসে আগুন দিয়েছে দুর্বৃত্তরা। এর মধ্যে, গুলিস্তানে রজনীগন্ধা পরিবহনের বাস, মিরপুর-১৩ নম্বরে ট্রাস্ট পরিবহনের বাস ও কলাবাগানে শিকড় পরিবহনের বাসে অগ্নিসংযোগ করা হয়। 

শনিবার (২৩ ডিসেম্বর) রাত সোয়া নয়টা থেকে রাত ১০টা ৫০ মিনিট পর্যন্ত এসব ঘটনা ঘটে। গুলিস্তান : রাত সোয়া ৯টার দিকে গুলিস্তান টোল প্লাজার পাশে রজনীগন্ধা পরিবহনের একটি বাসে আগুন দেওয়া হয়। পরে খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের দুইটি ইউনিট রাত ৯টা ২৭ মিনিটে আগুন নির্বাপণ করে। বাসে অগ্নিসংযোগের ঘটনায় কেউ হতাহত হয়েছে কি না সে বিষয়ে কোনো তথ্য দিতে পারেনি ফায়ার সার্ভিস।

এ ব্যাপারে ফায়ার সার্ভিস সদর দপ্তরের ডিউটি অফিসার রাশেদ বিন খালিদ জানান, রাত ৯টা ১৫ মিনিটে সদর দপ্তরে খবর আসে রাজধানীর গুলিস্তান টোল প্লাজার পাশে বাসে আগুন দিয়েছে দুর্বৃত্তরা। পরে ফায়ার সার্ভিসের দুইটি ইউনিট আগুন নেভায়।

মিরপুর-১৩ : রাজধানীর মিরপুর-১৩ নম্বর এলাকায় ট্রাস্ট পরিবহনের একটি বাসে অগ্নিসংযোগ করা হয়। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে আগুন নেভায় ফায়ার সার্ভিসের দুইটি ইউনিট।

ফায়ার সার্ভিস সদর দপ্তরের ডিউটি অফিসার রাশেদ বিন খালিদ জানান, রাত সাড়ে ১০টায় সদর দপ্তরে খবর আসে রাজধানীর মিরপুর-১৩ নম্বর এলাকায় ট্রাস্ট পরিবহনের একটি বাসে দুর্বৃত্তরা আগুন দিয়েছে। ওই খবরে ঘটনাস্থলে পৌঁছে আগুন নেভায় ফায়ার সার্ভিসের দুইটি ইউনিট। 

কলাবাগান : রাজধানীর কলাবাগানে শিকড় পরিবহনের একটি বাসে আগুন ধরিয়ে দেয় দুর্বৃত্তরা। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে ঘটনাস্থলে পৌঁছে আগুন নেভায় ফায়ার সার্ভিসের দুইটি ইউনিট।

ফায়ার সার্ভিস সদর দপ্তরের ডিউটি অফিসার রাশেদ বিন খালিদ জানান, রাত ১০টা ৫০ মিনিটে সদর দপ্তরে খবর আসে রাজধানীর কলাবাগান এলাকায় শিকড় পরিবহনের একটি বাসে দুর্বৃত্তরা আগুন দিয়েছে। ফায়ার সার্ভিসের দুইটি ইউনিট আগুন নিভিয়ে ফেলে বলেও জানান তিনি। 

গত ২৮ অক্টোবর বিএনপির মহাসমাবেশ পণ্ড হওয়ার প্রতিবাদে ২৯ অক্টোবর সারা দেশে হরতালের ডাক দেয় বিএনপি। এরপর বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরসহ দলটির শীর্ষ পর্যায়ের নেতাকর্মীকে গ্রেপ্তার করে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। পরে সরকারের পদত্যাগ, নির্দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচন ও গ্রেপ্তার নেতাকর্মীদের মুক্তির দাবিতে এক-দুই দিন পরপরই অবরোধ ও হরতালের মতো কর্মসূচি দিয়ে যাচ্ছে বিএনপি ও জামায়াতসহ সমমনা দলগুলো। 

সেই ধারাবাহিকতায় ভোটবর্জনে ২১ থেকে ২৩ ডিসেম্বর (বৃহস্পতি থেকে শনিবার) দেশব্যাপী গণসংযোগ এবং রোববার (২৪ ডিসেম্বর) সর্বাত্মক অবরোধ কর্মসূচি ঘোষণা করে বিএনপি। এতে সায় দেয় জামায়াত ও সমমনা দলগুলো। 

google.com, pub-6631631227104834, DIRECT, f08c47fec0942fa0