আর্কাইভ কনভাটার ঢাকা, শনিবার, জুন ১১০, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ | ১ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
Logo

More than 2 lakh visitors

ঈদের দ্বিতীয় দিনে চিড়িয়াখানায় ২ লাখের বেশি দর্শনার্থী

Bijoy Bangla

অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশিত: ১২ এপ্রিল, ২০২৪, ০৬:৩৯ পিএম

ঈদের দ্বিতীয় দিনে চিড়িয়াখানায় ২ লাখের বেশি দর্শনার্থী
ঈদের দ্বিতীয় দিনে চিড়িয়াখানায় ২ লাখের বেশি দর্শনার্থী....সংগৃহীত ছবি

রাজধানীর অন্যতম বিনোদন কেন্দ্র মিরপুর জাতীয় চিড়িয়াখানা। ঈদের দ্বিতীয় দিন আর শুক্রবার হাওয়ায় চিড়িয়াখানায় দর্শনার্থীর উপচেপরা ভিড়।

সংশ্লিষ্টরা বলছেন, ঈদের দিন এক লাখের কিছু বেশি মানুষ এসেছিলেন। তবে ঈদের দ্বিতীয় দিনে দর্শনার্থীর সংখ্যা ২ লাখেরও বেশি।

শুক্রবার (১২ এপ্রিল) বিকেলেও মিরপুরে জাতীয় চিড়িয়াখানায় দর্শনার্থী আসতে দেখা যায়। আগতদের অধিকাংশই শিশু-কিশোর, যারা অভিভাবকদের সঙ্গে এসেছে। চিড়িয়াখানায় অবস্থিত বিভিন্ন পশুর খাঁচার সামনে এসে তারা ভিড় করছে। তারা অভিভাবকদের কাছে পশু-পাখিদের নাম জানতে চাচ্ছে।

অভিভাবকরাও তাদের সন্তানদের আগ্রহ নিয়ে বিভিন্ন পশুর খাঁচার সামনে নিয়ে যাচ্ছেন। বিভিন্ন প্রাণীর খাঁচার সামনে দর্শনার্থীদের ভিড় করতে দেখা যায়। বাঘ, ভাল্লুক, সিংহ, হরিণ, বানর, জলহস্তী, জিরাফসহ বেশিরভাগ পশু-পাখির শেডের সামনে ছিল দর্শনার্থীরা‌।  


কুমিল্লার কাঁচপুর ব্রিজ এলাকা থেকে চিড়িয়াখানায় এসেছেন জাহিদুল ইসলাম। তিনি বলেন, সকাল সাড়ে ১১টায় কাঁচপুর থেকে আমরা ৯জন এসেছি চিড়িয়াখানায়। নাতি-নাতনী ও ছেলে মেয়েদের নিয়ে সপরিবারে এসেছি। বিকেল হয়ে গেল এখনো ছেলেমেয়েরা চিড়িয়াখানায় ঘুরছে। চিড়িয়াখানার পরিবেশ আগের থেকে ভালো হয়েছে। পশু পাখির সংখ্যাও বেড়েছে।

বাড্ডা এলাকা থেকে ওষুধ কোম্পানির কর্মকর্তা নাহিদ হোসেন এসেছেন চিড়িয়াখানায়। নাহিদ বলেন, এবারের ঈদের ছুটিতে গ্রামের বাড়িতে যাওয়া হয়নি। এই কারণে শহরের বিনোদন কেন্দ্রগুলোয় পরিবার নিয়ে ঘুরছি। ঈদের দিন গিয়েছিলাম হাতিরঝিল ও শিশু পার্কে। আজকে বাচ্চার জন্যই এসেছি চিড়িয়াখানায়।

চিড়িয়াখানার পরিচালক ড. মো. রফিকুল ইসলাম তালুকদার বলেন, ঈদের দিন চিড়িয়াখানার দর্শনার্থী এসেছিলেন এক লাখের একটু বেশি। আজ আমরা যে পরিমাণ দর্শনার্থীর সমাগম আশা করেছি তার থেকেও বেশি এসেছেন। বিকেল পর্যন্ত দুই লাখের বেশি দর্শনার্থী চিড়িয়াখানা এসেছেন।


চিড়িয়াখানা পরিচালক বলেন, নতুন করে চিড়িয়াখানায় দর্শনার্থীদের সুরক্ষার জন্য কয়েকটি পশুর খাঁচার উচ্চতা বাড়ানো হয়েছে এবং কয়েকটি পশুর পুরানো খাঁচার সংস্কার করা হয়েছে। গত বছর হায়নার আক্রমণে এক শিশুর হাত হারায়। তাই এই বছর আরও বেশি নিরাপত্তার বিষয়টি দেখছি। তবে আগত দর্শনার্থীদেরও সচেতন হতে হবে। এছাড়া দর্শনার্থীদের নিরাপত্তার জন্য আনসার পুলিশ, টুরিস্ট পুলিশ ও র‍্যাব দায়িত্ব পালন করছে।

হাতির আঘাতে মাহুতের ছেলের মৃত্যু বিষয় জানতে চাইলে চিড়িয়াখানা পরিচালক রফিকুল ইসলাম বলেন, এই ঘটনায় প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তর থেকে এক সদস্য বিশিষ্ট তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। ওই কমিটির সদস্য বিসিএস লাইভস্টক একাডেমি পরিচালক মো. শাহজামান খান।  

google.com, pub-6631631227104834, DIRECT, f08c47fec0942fa0